সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম এবং ইন্টারেস্ট রেট |

বাংলাদেশের কোন সরকারি ব্যাংক থেকে থাকলে সেটি হল সোনালী ব্যাংক। আজকে এই আর্টিকেল আলোচনা করা হবে সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য।

আপনি চাইলে সোনালী ব্যাংকের অধীনে একটি সেভিংস একাউন্ট তৈরী করতে পারবেন। আর সেভিংস একাউন্ট তৈরি করার নিয়ম এবং এতে কি কি প্রয়োজন হয় সে সম্পর্কে জেনে নিন।

সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম

সোনালী ব্যাংকের অধীনে একটি সেভিংস একাউন্ট তৈরি করার জন্য যে সমস্ত ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন হবে সেগুলো সম্পর্কে নিচে আলোচনা করা হলো।

একাউন্ট তৈরীর ডকুমেন্টস

১. যে ব্যক্তি অ্যাকাউন্ট তৈরি করবে তার জাতীয় পরিচয় পত্র সনদ পাসপোর্ট ড্রাইভিং লাইসেন্স কিংবা জন্ম সনদের মধ্যে থেকে যে কোন একটি ডকুমেন্ট প্রধান।

২.যে ব্যক্তি অ্যাকাউন্ট তৈরি করবে সেই ব্যক্তির দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের রঙ্গিন ছবি এবং নমিনি হওয়া ব্যক্তির 1 কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি।

৩. যে ব্যক্তি নমিনি হবে সেই ব্যক্তির জন্ম সনদ কিংবা জাতীয় পরিচয় পত্র এর এক কপি ছবি হলে হবে।

৪. যে ব্যক্তি অ্যাকাউন্ট তৈরি করবে সেই ব্যক্তি অবশ্যই বাংলাদেশ হতে হবে।

মূলত উপরে উল্লেখিত ডকুমেন্টের সমন্বয় আপনি যদি সোনালী ব্যাংকের একটি শাখা উপস্থিত হন, তাহলে আপনাকে একটি একাউন্ট অপেনিং ফর্ম দিবে যা ফিলাপ করতে হবে।

অথবা আপনি যদি চান একাউন্ট অপেনিং ফর্ম ডাউনলোড করে এটি প্রিন্ট আউট করার মাধ্যমে সমস্ত ডকুমেন্টস দিয়ে পূর্ণ করে দিতে তাহলে আপনি তা পারবেন।

ফরম ডাউনলোড করুন

 

এই কাজটি করার জন্য উপরে উল্লেখিত লিংক থেকে দুই পৃষ্ঠার সাইজের একাউন্ট অপেনিং ফর্ম ডাউনলোড করে নিন এবং তারপরে আপনার ডকুমেন্ট দিয়ে এটি ফিলাপ করুন।

মূলত ডাউনলোড কৃত একাউন্ট অপেনিং ফর্ম ফিলাপ করার মাধ্যমে আপনার একাউন্ট তৈরীর কাজ নিশ্চিত করে নিতে পারবেন। তাও কোন রকমের ঝামেলা ছাড়া।

সেভিংস একাউন্ট এর সুবিধা

 

  • যেকোনো সেভিংস একাউন্ট তৈরিকৃত ব্যক্তি বিনামুল্যে একটি চেক বই পেয়ে যাবে।
  • একাউন্টে সর্বনিম্ন ১০০০ টাকা জমা রাখতে হবে।
  • খুব তাড়াতাড়ি যেকোন দেশ থেকে রেমিটেন্স আনা সম্ভব হবে।
  • একদম সহজেই এক ব্রান্ঞ্চ থেকে অন্য ব্রান্ঞ্চ থাকা ট্রান্সফার করার সুবিধা থাকছে।

উপরে উল্লেখিত সুবিধাগুলো ছাড়াও একজন সোনালী ব্যাংক একাউন্টের গ্রাহক নানা রকমের সুযোগ সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন। সুবিধার বর্ণনা আপনি অ্যাকাউন্ট তৈরি করার পরেই পাবেন।

সোনালী ব্যাংক ইন্টারেস্ট রেট

এছাড়াও সোনালী ব্যাংকের অধীনে একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করার পরে এই একাউন্টে যে ইন্টারেস্ট রেট প্রযোজ্য হবে সেই সম্পর্কেও সোনালী ব্যাংক একটি পরিষ্কার বার্তা দিয়েছে।

আপনার সোনালী ব্যাংক একাউন্ট ইন্টারেস্ট রেট সম্পর্কে জেনে নেয়ার জন্য নিম্নলিখিত লিংক থেকে পিডিএফ ফাইলটি ডাউনলোড করে নিন। এখানে এই বিষয়টি ভালোভাবে লিপিবদ্ধ রয়েছে।

ইন্টারেস্ট রেট

 

উপরে উল্লেখিত লিংক থেকে পিডিএফ ফাইল ডাউনলোড করা সম্পন্ন হয়ে গেলে এই পিডিএফ ফাইল ফরম্যাট এর মধ্যে কয়েকটি পৃষ্টার ভিতর সমস্ত ইন্টারেস্ট রেট সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে।

আশা করি সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম এবং সোনালী ব্যাংক অ্যাকাউন্ট রিলেটেড এর যে সমস্ত বিষয় রয়েছে সেগুলো সম্পর্কে জেনে নিতে পেরেছেন।

6 thoughts on “সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম এবং ইন্টারেস্ট রেট |”

  1. আঠারো বছরের নিচে কেউ কি এই ব্যাংকে অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবে?

    Reply
    • জ্বী সম্ভব হতেও পারে। আপনি কাইন্ডলী ব্যাংক কর্মকর্তাদের সাথে যোগাযোগ করুন

      Reply
  2. সোনালী ব্যাংক ৬২, দিলকুশা শাখায় একটি এফসি একাউন্ট রয়েছে। আমি বর্তমানে বিদেশে আছি। আমি কি ্ওই একাউন্টে ডলার পাঠালে বিদেশ থেকে নিজের বা বাবা মায়ের নামে ওয়েজ আর্নার্স বন্ড কিনতে পারবো?

    Reply
  3. আমি বর্তমানে একটা ব্যবসায় আছি,, কিন্তু অন্য কোম্পানির পন্য নিয়ে বিজনেস করি,, আমি ছাচ্ছি নিজেই একটা উৎপাদন এবং বাজারজাত করন প্রতিষ্ঠানের উদ্বেগ নিতে সে খেত্রে আমার কিছু টাকা আছে আরো কিছু টাকা লাগতেছে,,, আমি ব্যবসায়িক লোন কতটাকা পর্যন্ত পেতে পারি???

    Reply
    • কতটাকা অবধী লোন নিতে পারবেন, সেটা নির্ভর করবে আপনার মাসিক আয়, লাস্ট ব্যাংক স্টেটমেন্ট ব্যবসাী বর্তমান অব্সহার উপরে।

      Reply

Leave a Comment