ব্যাংক এশিয়া একাউন্ট খোলার নিয়ম | Create Bank Asia Account

বাংলাদেশে যে সমস্ত ব্যাংক রয়েছে সেগুলোর মধ্যে থেকে ব্যাংক এশিয়া অন্যতম। আর সেজন্য ব্যাংক এশিয়া একাউন্ট তৈরি করার নিয়ম সম্পর্কে জানা আরো বেশি আবশ্যকীয়।

এই আর্টিকেলের মূলত আলোচনা করা হবে ব্যাংক এশিয়া অ্যাকাউন্ট তৈরি করার নিয়ম এবং এই রিলেটেড আরো যে সমস্ত তথ্য রয়েছে সেগুলো প্রদত্ত সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা।

ব্যাংক এশিয়া একাউন্ট এর ধরন

আপনি হয়তো এই সম্পর্কে অবগত আছেন যে, আপনি যদি ব্যাংক এশিয়া একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে চান তাহলে দুই রকমের একাউন্ট তৈরী করতে পারবেন।

আর এই দুই রকমের একাউন্ট এর প্রকারভেদ হলোঃ

  1. ডিমান্ড ডিপোজিট একাউন্ট।
  2. টাইম ডিপোজিট একাউন্ট।

মূলত এই দুই রকমের অ্যাকাউন্ট তৈরি করার সুযোগ সুবিধা ভিন্ন রয়েছে।

টাইম ডিপোজিট একাউন্ট এর মধ্যে রয়েছে সেভিংস ব্যাংক ডিপোজিট একাউন্ট, কারেন্ট ডিপোজিট একাউন্ট এবং short-term ডিপোজিট একাউন্ট।

এছাড়াও ডিমান্ড ডিপোজিট একাউন্ট এর মধ্যে রয়েছে, সেভিংস ডিপোজিট একাউন্ট, কারেন্ট ডিপোজিট একাউন্ট এবং শর্ট টাইম ডিপোজিট একাউন্ট।

এ ছাড়াও আরো অন্যান্য একাউন্ট ডিমান্ড ডিপোজিট একাউন্ট এর মধ্যে পড়ে।

উপরে উল্লেখিত একাউন্ট এর প্রকারভেদ এর মধ্যে আপনার যেরকম এর অ্যাকাউন্ট তৈরি করার ইচ্ছা হয় সেইরকম একটি একাউন্ট সিলেক্ট করে নিন।

এবার তাহলে জেনে নেয়া যাক কিভাবে একাউন্ট খুলবেন?

ব্যাংক এশিয়া একাউন্ট খোলার নিয়ম

বাংলাদেশে আরো অন্যান্য যে সমস্ত ব্যাংক অ্যাকাউন্ট রয়েছে, সে সমস্ত ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম এবং ব্যাংক এশিয়া একাউন্ট খোলার নিয়ম মোটামুটি একই রকম।

এই অ্যাকাউন্ট তৈরি করার জন্য যে সমস্ত ডকুমেন্টস প্রয়োজন হবে সেগুলো সম্পর্কে নিচে আলোচনা করা হলো।

একাউন্ট তৈরীর বেসিক ডকুমেন্ট

অ্যাকাউন্ট তৈরি করার জন্য যে বেসিক ডকুমেন্টস রয়েছে, সেগুলোর মধ্যে থেকে প্রথমত আপনাকে একাউন্ট অপেনিং ফর্ম ডাউনলোড করে নিতে হবে।

Download Account Opening from

 

একাউন্ট অপেনিং ফর্ম ডাউনলোড করে নেয়ার পরে একজন রেফারেন্স ব্যক্তি নির্বাচন করতে হবে এবং ওই ব্যক্তির দুই কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি সংগ্রহ করতে হবে।

এবার ব্যাংক অ্যাকাউন্টের জন্য যে নমিনী নির্বাচন করেছেন, সেই নমিনি এবং ডিস্ট্রিবিউটর ডকুমেন্ট যখন আপনি কালেক্ট করে নিবেন তখন ব্যাংক কর্তৃক যে ফরম দেয়া সেই ফরমটি যথাযথভাবে ফিলাপ করে নিন।

ব্যক্তিগত ডকুমেন্টস

এছাড়াও যে ব্যক্তি অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে চাইবে, সেই ব্যক্তির ব্যক্তিগত ডকুমেন্ট হিসেবে যে সমস্ত বিষয়াদি প্রয়োজন হবে, সেগুলো সম্পর্কে নিচে আলোচনা করা হলো।

  • জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি। যদি না থাকে তাহলে জন্ম নিবন্ধন এর ফটোকপি।
  • আপনার ঠিকানা প্রমাণের জন্য নির্দিষ্ট ডকুমেন্ট। ছাত্র হয়ে থাকলে এডমিট কার্ড অথবা জন্ম নিবন্ধনের ফটোকপি।
  • আয়ের উৎস প্রমাণের জন্য একটি ডকুমেন্টস। স্টুডেন্ট হলে এগুলোর কোন দরকার নেই।
  • এছাড়াও যদি ই-টিন সার্টিফিকেট এর প্রয়োজন হলে তাহলে এটি প্রভাউড করতে পারেন, যদি না থাকে তাহলে কোন সমস্যা নেই।

আর খুব সহজে ব্যাংক এশিয়া একাউন্ট তৈরি করার যে সমস্ত নিয়ম এবং অন্যান্য বিষয়াবলি রয়েছে সেগুলো সম্পর্কে উপরে আলোচনা করা।

এবার এসমস্ত ডকুমেন্টস এর সহিত আপনার আশেপাশে রয়েছে এরকম একটি ব্যাংক এশিয়ার শাখা কিংবা ব্রান্ঞে যোগাযোগ করুন। তাহলেই ব্যাংকের একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা আপনার একাউন্ট খোলার জন্য বাকি সাহায্য করবেন।

আশা করি এই সম্পর্কে আপনি বিস্তারিত তথ্য জেনে নিতে পেরেছেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top