বিদেশ থেকে সোনালী ব্যাংকে টাকা পাঠানোর নিয়ম

আপনার যদি একটি সোনালী ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে থাকে তাহলে আপনি বিদেশ থেকে সোনালী ব্যাংকে টাকা পাঠানোর নিয়ম জেনে সেই ব্যাংক একাউন্টে টাকা পাঠাতে পারেন।

কিভাবে বিদেশ থেকে আপনার সোনালী ব্যাংক একাউন্টে টাকা পাঠাবেন, সেই সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্য এই আর্টিকেল থেকে জেনে নিতে পারবেন।

বিদেশ থেকে একাউন্টে টাকা পাঠাতে যা যা লাগবে

আপনি যদি বিদেশ থেকে সোনালী ব্যাংক একাউন্টে টাকা পাঠাতে চান তাহলে বিদেশ থেকে একাউন্ট পাঠানোর জন্য আপনার কাছ থেকে যে সমস্ত ইনফরমেশন এর প্রয়োজন হবে, সেগুলো সম্পর্কে নিচে তুলে ধরা হলো।

  • রেমিটেন্স রিসিভারের সোনালী ব্যাংকের একাউন্ট নাম্বার।
  • রিসিভারের পুরো নাম।
  • সোনালী ব্যাংকের ব্র্যাঞ্চের নাম।
  • ব্র্যাঞ্চ কোড।

উপরে উল্লেখিত চারটি তথ্য আপনি যদি সংগ্রহ করে নিতে পারেন, তাহলে আপনি খুব সহজেই যেকোন দেশ থেকে সোনালী ব্যাংক একাউন্টে টাকা পাঠাতে পারবেন।

যখনই আপনি উপরে উল্লেখিত চারটি তথ্য সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে যাবেন তখন আপনি চাইলে ব্যাংক থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম সম্পর্কে জেনে নিতে পারেন।

বিদেশ থেকে সোনালী ব্যাংকে টাকা পাঠানোর নিয়ম

এবার আপনি যদি বিদেশ থেকে আপনার কাংখিত সোনালী ব্যাংকে টাকা পাঠাতে চান, তাহলে আপনাকে নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলো অনুসরণ করতে হবে তাহলেই আপনি সফলভাবে টাকা পাঠানোর কাজ সম্পন্ন করতে পারবেন।

বিদেশ থেকে ব্যাংকে টাকা পাঠানোর জন্য আপনাকে প্রথমত আপনার আশেপাশে থাকা যেকোনো একটি মানি এক্সচেঞ্জ হাউজে চলে যেতে হবে।

যখনই আপনি উপরে উল্লেখিত তথ্যগুলো সাথে নিয়ে আপনার নিকটস্থ কোনো একটি মানি এক্সচেঞ্জ হাউসে চলে যাবেন, এবং তারপরে আপনি তাদের সাথে এই বিষয়ে আলোচনা করতে পারেন।

অর্থাৎ আপনি তাদেরকে এ বিষয়ে বলতে পারেন যে আপনি নির্দিষ্ট ব্যাংক একাউন্টে টাকা পাঠাতে চান এবং আপনার কাছে এই ইনফর্মেশন গুলো সাথে রয়েছে।

যদি আপনার দেয়া প্রত্যেকটি তথ্য সঠিক হয়ে থাকে তাহলে, খুব সহজে কম সময়ের মধ্যে ব্যাংক এক্সচেঞ্জ হাউজ থেকে আপনি খুব সহজেই আপনার সোনালী ব্যাংকে টাকা পাঠাতে পারবেন।

মোট কথা হল, যে কোন দেশ থেকে টাকা পাঠানোর জন্য আপনাকে যেকোন একটি এক্সচেঞ্জ হাউজ চলে যেতে হয় এবং সেখান থেকে টাকা পাঠানোর কাজ সম্পন্ন করতে হয়।

বিদেশ থেকে সোনালী ব্যাংকে টাকা পাঠানোর সুবিধা

আপনি যদি যেকোনো একটি এক্সচেঞ্জ হাউজ থেকে আপনার সোনালী ব্যাংক একাউন্টে টাকা পাঠান, তাহলে কি রকমের সুযোগ সুবিধা উপভোগ করবেন?

অর্থাৎ বৈধ উপায়ে এক্সচেঞ্জ হাউজ থেকে আপনার ব্যাংক একাউন্টে টাকা পাঠানোর পরিবর্তে আপনি নিশ্চয়ই কিছু সুযোগ-সুবিধা নিতে চাইবেন।

আর এই সমস্ত সুযোগ সুবিধা আপনি যেকোনো একটি এক্সচেঞ্জ হাউজ থেকে পেয়ে যাবেন। বৈধ উপায়ে এক্সচেঞ্জ হাউজ থেকে টাকা পাঠানোর পরিবর্তে আপনি যে সমস্ত সুযোগ সুবিধা পাবেন, সেগুলো নিচে বর্ণনা করা হলো

এক্সচেঞ্জ হাউজ এর মাধ্যমে আপনি টাকা পাঠালে খুব কম সময়ে এবং পুরোপুরি সুরক্ষিতভাবে আপনার টাকা নিজের কাছে চলে আসবে।

এছাড়াও প্রত্যেকটি সফল ট্রানজেকশন এর পরিবর্তে আপনি ২.৫% মুনাফা অর্জন করবেন কিংবা বোনাস পাবেন।

উপরে উল্লেখিত তৈরী সুযোগ সুবিধা ছাড়াও ব্যাংক থেকে টাকা পাঠানোর আরও নানা রকম সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। তবে উপরে উল্লেখিত দুইটি সুবিধা হল সবচেয়ে বেশি মুখ্য সুবিধা।

টাকা পাঠানোর খরচ কেমন?

আপনি যদি যেকোনো একটি এক্সচেঞ্জ হাউজ থেকে টাকা পাঠাতে চান, তাহলে আপনাকে কোনো রকমের খরচ দিতে হয়না। সোনালী ব্যাংকে টাকা পাঠানোর কাজটি করা একেবারে ফ্রী তে সম্ভব।

তবে এখানে যে এক্সচেঞ্জ হাউজ রয়েছে তাদের নির্দিষ্ট চার্জ আপনার কাঙ্খিত এমাউন্ট থেকে রেখে দিতে পারে। যার পরিমাণ হতে পারে খুবই স্বল্প।

কিভাবে আপনি চাইলে খুব সহজেই বিদেশ থেকে সোনালী ব্যাংক একাউন্টে টাকা পাঠাতে পারবেন, সেই সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্য উপরে আলোচনা করা হলো।

       

নিত্যনতুন ব্যাংকিং রিলেটেড ভিডিও দেখতে চান?

উচ্চমানের ব্যাংকিং রিলেটেড ভিডিও পেতে আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করে সাথে থাকুন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top