বিদেশ থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম (৩ টি উপায়)

আমাদের মধ্যে যে বা যারা নতুন প্রবাসে ভ্রমণ করেছেন তাদের কাছে একটি কমন প্রশ্ন হচ্ছে বিদেশ থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম আসলে কি?

কিভাবে আপনি চাইলে বিদেশ থেকে টাকা পাঠাতে পারবেন, এবং কম সময়ে আপনার নির্দিষ্ট গন্তব্যে টাকা পাঠানোর উপায় গুলো আসলে কি কি?

এই রিলেটেড যাবতীয় তথ্য আপনি যদি জেনে নিতে চান, তাহলে এই আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত দেখে নিতে পারেন। এখান থেকে জেনে নিতে পারেন বিদেশ থেকে টাকা বাংলাদেশ পাঠানোর নিয়ম সম্পর্কে।

বিদেশ থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম কতটি হতে পারে?

আপনি চাইলে অনেকগুলো ভিন্ন ভিন্ন উপায়ে বিদেশ থেকে টাকা পাঠাতে পারবেন। বিদেশ থেকে টাকা পাঠানোর ক্ষেত্রে ভিন্ন অনেকগুলো নিয়ম রয়েছে। যেগুলোর মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই টাকা পাঠাতে পারবেন।

তবে যে সমস্ত পদ্ধতিতে টাকা পাঠানো সবচেয়ে বেশি সহজতর এবং কম সময়ে আপনি যে সমস্ত পদ্ধতিতে টাকা পাঠাতে পারবেন, সেগুলো সম্পর্কে এই আর্টিকেলে আলোচনা করা হবে।

সেজন্য আর দেরি না করে এখনি জেনে নেয়া যাক যে কোন দেশ থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠানোর ক্ষেত্রে আপনি কোন কোন উপায়ে টাকা পাঠাতে পারবেন?

ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে

পৃথিবীর যেকোন দেশ থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠানোর ক্ষেত্রে সবচেয়ে বহুল ব্যবহৃত যে পদ্ধতি সেটি হল ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে টাকা পাঠানো।

অনেকেই ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে টাকা পাঠানোর নিয়ম সম্পর্কে অবগত নন, যার কারণে এটি অনেকের কাছে জটিল মনে হতে পারে।

ব্যাংকের মাধ্যমে আপনি যদি যেকোন দেশ থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠাতে চান তাহলে আপনাকে শুধুমাত্র ২ টি ধাপ অনুসরণ করতে হবে।

আর তাহলেই আপনি সফলভাবে যে কোন দেশ থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠাতে পারবেন।

এবং এই দুইটি পদ্ধতি হলোঃ

উপরে উল্লেখিত দুইটি পদ্ধতি আপনি যদি অনুসরণ করে নেন, তাহলে খুব সহজেই আপনি যে কোন দেশে থেকে বাংলাদেশের টাকা পাঠাতে পারবেন।

ব্যাংক একাউন্ট তৈরী করে নেয়া

প্রথমত আপনাকে বাংলাদেশ যে সমস্ত ব্যাংক রয়েছে সেগুলোর মধ্যে থেকে যেগুলো সবচেয়ে বেশি লিডিং এবং কার্যকরী হিসেবে বিবেচিত হয় সেগুলোর মধ্যে থেকে যেকোনো একটি ব্যাংকে অ্যাকাউন্ট তৈরি করে নিতে হবে।

আপনি যদি ঘরে বসে ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য জেনে নিতে চান কিংবা অনলাইনে একাউন্ট তৈরি করা রিলেটেড তথ্য জেনে নিতে চান, তাহলে নিম্নলিখিত আর্টিকেলটি দেখে নিতে পারেন।

জেনে নিনঃ অনলাইনে ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম

উপরে উল্লেখিত আর্টিকেলটি দেখে নিলে আপনি খুব সহজে ঘরে বসে অনলাইনে ব্যাংক একাউন্ট তৈরি করতে পারবেন।

যখনই, আপনি ব্যাংক একাউন্ট খোলার কাজ সম্পন্ন করে নেবেন এবং আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট পুরোপুরিভাবে এক্টিভ করে নিবেন, তখন আপনি চাইলে এ ব্যাংক একাউন্টে যে কোন দেশ থেকে টাকা পাঠাতে পারবেন।

এক্ষেত্রে কার্যকরী ধাপ হিসেবে আপনাকে শুধুমাত্র আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নাম্বার এবং আপনার ব্যাংক একাউন্টে যে ব্রাঞ্চ রয়েছে সে ব্রাঞ্চ নাম মনে রাখতে হবে। কিংবা আপনি একটি খাতার পৃষ্ঠা লিখে সেই কাজটি সম্পন্ন করতে পারেন।

জেনে নিনঃ বাংলাদেশ থেকে বিদেশে টাকা পাঠানোর নিয়ম

যখনই, আপনি যখনই আপনার ব্যাংক একাউন্টের নাম্বার এবং ব্রাঞ্চ মুখস্থ করে নিবেন কিংবা সংগ্রহ করে নিবেন তখন আপনি সেই দেশের যেকোনো একটি ব্যাংকে গিয়ে পৌছাতে পারেন।

এবং তার পরে যখনই আপনি আপনার ব্যাংক ডিটেলস গুলো যথাযথভাবে দিয়ে দিতে পারবেন, তখন তারা আপনার একাউন্টে নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা পাঠাতে সক্ষম হবে।

মোট কথা হল, সবচেয়ে কার্যকরী পদ্ধতিতে এবং সবচেয়ে কম খরচে আপনি যদি বিদেশ থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠাতে চান তাহলে এই উপায়ে ব্যবহার করার মাধ্যমে টাকা পাঠাতে পারেন।

বিভিন্ন মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে

বাংলাদেশে যে সমস্ত মোবাইল ব্যাংকিং অপারেটর রয়েছে তার অনেকগুলোই আপনি আপনার কাংখিত দেশে পেয়ে যাবেন। অর্থাৎ তারা ঐ সমস্ত দেশে বিভিন্ন আউটলেট স্থাপন করেছে।

সেজন্য আপনি যদি খুবই কম সময়ে এবং অধিক চার্জে, বিদেশ থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠাতে চান তাহলে মোবাইল ব্যাংকিং ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনার কাজটি সম্পন্ন করতে পারেন।

এক্ষেত্রে কার্যকরী পদক্ষেপ হিসেবে, আপনাকে শুধুমাত্র আপনার আশেপাশে যে সমস্ত মোবাইল ব্যাংকিং অপারেটর রয়েছে সেখানে চলে যেতে হবে এবং তারপরে আপনার নির্দিষ্ট নাম্বারে টাকা সেন্ড মানি করে দিতে হবে।

সেন্ড মানি করার ক্ষেত্রে আসলে কত টাকা চার্জ প্রযোজ্য হবে, সেটা আপনার নির্দিষ্ট মোবাইল ব্যাংকিং অপারেটর এর উপর নির্ভর করবে।

অনুমোদিত মানি এক্সচেঞ্জ হাউজ

এছাড়াও বিদেশে অনুমোদিত যে সমস্ত বাংলাদেশি মানি এক্সচেঞ্জ হাউজ রয়েছে, সেগুলোর মাধ্যমে আপনি চাইলে খুব সহজেই টাকা পাঠাতে পারেন।

মানি এক্সচেঞ্জ হাউজ এর মাধ্যমে আপনি টাকা পাঠান তাহলে নির্দিষ্ট টাকার চেয়ে আরো বেশি টাকা পাবেন। অর্থাৎ মানি এক্সচেঞ্জ হাউজ এর মাধ্যমে টাকা পাঠানো অনেকাংশে লাভজনক।

জেনে নিনঃ আমেরিকা থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠানোর নিয়ম

তবে এক্ষেত্রে আপনাকে বেশ কিছুসময় বা দিন অপেক্ষা করতে হয়। যাতে করে নির্দিষ্ট পরিমান টাকা আপনার একাউন্টে ডিপোজিট হবে এবং আপনি সেই টাকা পেয়ে যাবেন।

মানি এক্সচেঞ্জ হাউজ এর মাধ্যমে আপনি যদি টাকা পাঠাতে চান, তাহলে আপনাকে একটি বিষয় খেয়াল রাখতে হয় আর সেটি হল আপনার ব্যাংক একাউন্টের ডিটেইলস।

এক্ষেত্রে আপনি যদি ভুল ব্যাংক ডিটেইলস দেয়া দিয়ে দেন তাহলে, নির্দিষ্ট গন্তব্যে টাকা পৌছাবেনা এবং আপনি নানা রকমের জটিলতার সম্মুখীন হবেন।

আর উপরে উল্লেখিত উপায়ে আপনি চাইলে খুব সহজে বিদেশ থেকে টাকা পাঠানোর নিয়ম জেনে খুব সহজে বিদেশ থেকে বাংলাদেশ ব্যাংকে টাকা পাঠাতে পারবেন।

       

নিত্যনতুন ব্যাংকিং রিলেটেড ভিডিও দেখতে চান?

উচ্চমানের ব্যাংকিং রিলেটেড ভিডিও পেতে আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করে সাথে থাকুন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top