বাংলাদেশের সেরা ১০ টি ব্যাংক সম্পর্কে জেনে নিন

আপনি যদি বাংলাদেশ থেকে ব্যাংকিং কার্যক্রম সম্পন্ন করতে চান, তাহলে বাংলাদেশের সেরা ১০ টি ব্যাংক রয়েছে, সেই সেরা দশটি ব্যাংক সম্পর্কে জেনে নেয়ার প্রয়োজন রয়েছে।

বাংলাদেশের সেরা ১০ টি ব্যাংক কোন কোন কারণে সেরা? সেই সম্পর্কে আজকের এই আর্টিকেল আলোচনা করা হবে। যাতে করে আপনি নিজেই আপনার পছন্দের ব্যাংক বেছে নিতে পারবেন।

বাংলাদেশের সেরা ১০ টি ব্যাংকে কিভাবে নির্বাচন করা হয়েছে?

এখানে যে দশটি ব্যাংকের কথা মেনশন করা হয়েছে, সেই দশটি ব্যাংক বিভিন্ন রকমের রিসার্চ এনালাইসিস করার মাধ্যমে নির্বাচন করা হয়েছে।

তবে, এখানে আরেকটি বিষয় বলে রাখা ভাল আর সেটি হলো, এখানে যে সমস্ত ব্যাংকের কথা মেনশন করা হয়েছে সে সমস্ত ব্যাংক বাদে অন্যান্য ব্যাংক আপনার জন্য যো ভাল হবেনা, সেটা কিন্তু নয়।

এখানে যে দশটি ব্যাংকের কথা মেনশন করা হয়েছে সেগুলো আমাদের পছন্দের লিস্টে। তার মানে এটা নয় যে অন্যান্য ব্যাংক গুলো খারাপ বা আপনার জন্য সুবিধাজনক নয়।

যে সমস্ত ব্যাংকের বাংলাদেশের সেবা দিয়ে আসছে, প্রায় প্রত্যেকটি ব্যাংক বিশ্বস্ততার সাথে সেবা দিয়ে আসছে। তবে কিছু কিছু কারণে এই সমস্ত ব্যাংক গুলো অনেকটা এগিয়ে।

১- ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড

বাংলাদেশের সেরা ১০ টি ব্যাংকে কথা মেনশন করার ক্ষেত্রে সর্বপ্রথম যে ব্যাংকটি জায়গা দখল করে নেয়ার মত ক্ষমতা রাখে, সেটি হলো ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড

এই ব্যাংকটি সেরা হওয়ার অনেকগুলো কারণ রয়েছে তার মধ্যে থেকে উল্লেখযোগ্য হলো ব্যাংকিং সিস্টেম এবং এই ব্যাংকের কাস্টমার কেয়ার সিস্টেম।

আপনি চাইলেই ব্যাংকের সাথে নিরবিচ্ছিন্ন ব্যাংকিং সেবা উপভোগ করতে পারবেন এবং শরিয়াভিত্তিক ভাবে ব্যাংকিং সেবা উপভোগ করতে পারবেন।

এটি ১৯৮৩ সালে প্রতিষ্টিত হয়। এই ব্যাংকের ৬৩.০৯% বিদেশি এবং ৩৬.৯১% দেশি শেয়ারহোল্ডার রয়েছে।

মোট শাখাঃ ৩৭৩ টি শাখা এবং ১৮১ টি উপশাখা
মোট সম্পত্তির পরিমানঃ ১৬,০৯৯.৯১ মিলিয়ন টাকা

এছাড়াও আপনি যদি নিরাপদ ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনা করতে চান, তাহলে ইসলামী ব্যাংক আপনার জন্য অন্যতম চয়েজ।

২- ডাচ-বাংলা ব্যাংক লিমিটেড

বাংলাদেশের আরেকটি নিরবিচ্ছিন্ন এবং বিশ্বস্ত ব্যাংক হল ডাচ-বাংলা ব্যাংক লিমিটেড। এই ব্যাংকটির অনেকদিন যাবত বাংলাদেশে বিশ্বস্ততার সাথে ব্যাংকিং সেবা দিয়ে আসছে।

যদি লক্ষ্য করেন, তাহলে দেখতে পারবেন এটি বাংলাদেশ এবং নেদাল্যান্ডের যৌথ উদ্যোগে তৈরি করা হয়েছিল ১৯৯৬ সালে।

বর্তমানের এই ব্যাংকের মোট শাখা ২১০ টি। এছাড়া ওই ব্যাংক হেল্পলাইন নাম্বার এর মাধ্যমে সার্বক্ষণিক সেবা দিয়ে থাকে।

৩- সিটি ব্যাংক লিমিটেড

আপনি যদি ব্যাংকিং সেবা উপভোগ করতে চান, পুরোপুরি ডিজিটালাইজেশনের মাধ্যমে তাহলে সিটি ব্যাংক লিমিটেড আপনার জন্য একটি অন্যতম চয়েস থাকার দরকার রয়েছে।

সিটি ব্যাংক মূলত ইন্টারন্যাশনাল ভাবে আপনাকে ব্যাংকিং রিলেটেড সেবা দিয়ে থাকে। এবং এই ব্যাংকের কার্যক্রম খুবই ভালো থাকার কারণে এই ব্যাংকটি সেরা ১০ টি ব্যাংকের তালিকা জায়গা করে নিয়েছে।

বাংলাদেশে এই ব্যাংকের মোট শাখা রয়েছে ১৩২ টি।

৪- ব্রাক ব্যাংক লিমিটেড

এ ছাড়াও বাংলাদেশে আরও একটি জনপ্রিয় ব্যাংক হল ব্রাক ব্যাংক লিমিটেড। এই ব্যাংক সর্বপ্রথম চালু হয় ২০০১ সালের ৪ জুলাই।

এই ব্যাংকের মোট শাখা এর পরিমাণ ১৮৭ টি।

৫- ব্যাংক এশিয়া লিমিটেড

ব্যাংক এশিয়া বাংলাদেশের আরেকটি জনপ্রিয় ব্যাংক। যার মাধ্যমে আপনি দেশে কিংবা বিদেশে লেনদেন করতে পারবেন

এই ব্যাংক রিলেটেড যে কোনো রকমের সমস্যার মধ্যে যদি আপনি পড়েন, তাহলে তাদের যে হেল্পলাইন নাম্বার রয়েছে, সে নাম্বারের মাধ্যমে সেই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে।

ব্যাংকটি বর্তমানে প্রায় ৩৫০০ এর অধিক এজেন্ট রয়েছে, যার মাধ্যমে ব্যাংকটির নিরবিচ্ছিন্ন সেবা দিয়ে যাচ্ছে।

এই ব্যাংকের ব্যাংকিং কার্যক্রম খুবই সুবিধাজনক এবং খুবই নিরবিচ্ছিন্ন ভাবে দিয়ে থাকে।

৬- ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড

এটি বাংলাদেশের একটি জনপ্রিয় ব্যাংকের মাধ্যমে আপনি বিভিন্ন রকমের কার্যক্রম সম্পন্ন করতে পারবেন। এই ব্যাংকের ব্যাংকিং কার্যক্রম অন্যান্য ব্যাংকের চেয়ে একটু আলাদা।

ব্যাংক এর কার্যকারিতা এবং ব্যাংকিং সাপোর্টের কারণে এই ব্যাংকটি আমাদের লিস্টে জায়গা করে নিয়েছে।

৭- অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড

অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড বাংলাদেশের একটি জনপ্রিয় ব্যাংক এই ব্যাংকের গ্রাহক সংখ্যা খুবই বেশি এবং ব্যাংকটিতে বর্তমানে অনেকগুলো ব্রাঞ্চ এবং শাখা রয়েছে।

যে সমস্ত ব্রাঞ্চ এবং শাখার মাধ্যমে আপনি ব্যাংকিং সেবা উপভোগ করতে পারেন।

উপরে উল্লেখিত সাতটি ব্যাংক ছাড়াও আরো যে সমস্ত ব্যাংক আমাদের বাংলাদেশের সেরা ১০ টি ব্যাংকের মধ্যে জায়গা করে নিয়েছে, সেগুলো লিস্ট নিচে দেয়া হল।

উপরে যে দশটি ব্যাংকের কথা মেনশন করা হয়েছে, সেই দশটি ব্যাংক আপনার পছন্দের ব্যাংকের মধ্যে রাখতে পারেন।

এই ব্যাংক ছাড়া অন্যান্য ব্যাংক কি খারাপ?

এই সম্পর্কে আর্টিকেলের প্রথমে আলোচনা করা হয়েছে যে, এখানে যে সমস্ত ব্যাংকের কথা মেনশন করা হয়েছে যে সমস্ত ব্যাংক গুলো আমাদের লিস্টে জায়গা করে নেয়ার প্রধান কারণ হলাম আমরাই।

তবে এখানে যে সমস্ত ব্যাংকের কথা মেনশন করা হয়নি সে সমস্ত ব্যাংক গুলো যে খারাপ, সেটা মোটেও ঠিক নয়।

যে সমস্ত ব্যাংকের কথা মেনশন করা হয়নি, সেই সমস্ত ব্যাংক অবশ্যই ভালো। নচেৎ তারা এতদিন বাংলাদেশে টিকে থাকতে পারতো না।

তবে যেকোনো ব্যাংকের সাথে আপনি ব্যাংকিং কার্যক্রম সম্পন্ন করেন না কেন, যে সমস্ত ব্যাংকের হেল্পলাইন নাম্বার রয়েছে, সে সমস্ত ব্যাংকের সাথে ব্যাংকিং কার্যক্রম সম্পন্ন করলে আপনি বেশি সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন।

কারন, ব্যাংকিং রিলেটেড কোন একটি সমস্যার মধ্যে পড়লে আপনি যদি ব্রাঞ্চে কিংবা শাখায় গিয়ে সেটি সমাধান করতে চান, তাহলে অনেক সময় লেগে যেতে পারে।

কিন্তু আপনি যদি ব্যাংকিং হেল্পলাইন নাম্বারে কল করার মাধ্যমে সেই সমস্যাটি আলোচনা করেন, তাহলে সেটি সহজেই সমাধান হয়ে যায়।

সে জন্য যে সমস্ত ব্যাংকের হেল্পলাইন নাম্বার বরাদ্দ রয়েছে, সেই সমস্ত ব্যাংকের সাথে ব্যাংকিং কার্যক্রম সম্পন্ন করলে ভালো রকমের সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন।

বাংলাদেশের সেরা ১০ টি ব্যাংক সম্পর্কে উপরে আলোচনা করা হলো।

আশা করি, এই সম্পর্কে আপনার জানা হয়ে গেছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top