ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন ব্যবস্থাপনা নিয়ে বিস্তারিত |

ডাচ বাংলা ব্যাংক লোন ব্যবস্থাপনা নিয়ে বিস্তারিত |

ডাচ বাংলা থেকে লোন নেওয়ার জন্য বিভিন্ন রকমের খাত বিদ্যমান রয়েছে। যেমন ডাচ বাংলা ব্যাংক হোম লোন, ডাচ বাংলা ব্যাংক পার্সোনাল লোন, ডাচ বাংলা ব্যাংক কার লোন।

মূলত ডাচ বাংলা ব্যাংকের একজন গ্রাহক হিসেবে আপনি চাইলে আপনার সুবিধামতো লোন সেবা উপভোগ করতে পারবেন। তবে কি রকম কাজের ক্ষেত্রে কিরকম লোন প্রযোজ্য সেগুলো দেখে নেয়া প্রয়োজন।

ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে আপনি চাইলে তিনটি ভিন্ন ভিন্ন খাতের জন্য তিনটি ভিন্ন ভিন্ন রকমের লোন সেবা নিতে পারবেন। তাহলে দেখে নিন এই সমস্ত লোন সেবা এবং এগুলো থেকে লোন নেওয়ার সম্পর্কে বিস্তারিত।

লোন নেয়ার রিকোয়ারমেন্ট

আপনি যদি ডাচ-বাংলা ব্যাংক থেকে রিটেইলার লোন নিতে চান, তাহলে যে সমস্ত রিকোয়ারমেন্ট এর প্রয়োজন হবে সেগুলো নিচে আলোচনা করা হলো।

চাকরির রিকোয়ারমেন্ট

ব্যাংক থেকে লোন নেওয়ার ক্ষেত্রে আপনাকে যে সমস্ত চাকরির আওতাধীনে থাকতে হবে সেগুলো নিম্নরূপ মেনশন করা হলো।

  • চাকুরী।
  • ব্যবসা
  • বাসা ভাড়া।
  • ডাক্তার; প্রকৌশলী ইত্যাদি।
  • এবং অন্যান্য যে কোন বৈধ ব্যবসা।

প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

লোন নেয়ার জন্য যে সমস্ত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আপনার সাথে নিয়ে যেতে হবে সেগুলো নিচে মেনশন করা হলো।

  • জাতীয় পরিচয় পত্র।
  • সদ্যতোলা এক কপি রঙিন ছবি ।
  • ব্যাংক স্টেটমেন্ট কমপক্ষে ছয় মাসের।
  • আপনার চাকরির প্রমাণাদি।
  • পার্সোনাল গ্যারান্টি প্রধান।
  • TIN/eTin ( যদি আপনার ঋণের পরিমাণ 5 লক্ষ বা তার চেয়েও বেশি হয়)।

বয়স সীমা

  • যে ব্যক্তি লোন নিতে চায় তার সর্বনিম্ন বয়সসীমা 18 বছর হতে হবে।
  • সর্বোচ্চ বয়সসীমা হবে গ্রাহকের অবসর নেয়ার সময় কাল।

লোন পরিশোধের নিয়ম

প্রত্যেক গ্রাহক তার লোন এর ভিত্তিতে সমপরিমাণ মাসিক কিস্তির মাধ্যমে লোন পরিশোধ করবে।

মূলত উপরে উল্লেখিত রিকোয়ারমেন্ট যদি আপনার সাথে মিলে যায় এবং আপনি যদি এই সমস্ত রিকোয়ারমেন্ট এর মধ্যে পড়েন, তাহলে আপনি ডাচ বাংলা ব্যাংকের বিভিন্ন লোন সেবা নিতে পারবেন।

ডাচ বাংলা ব্যাংক হোম লোন

আপনি যদি ডাচ-বাংলা ব্যাংক থেকে লোন নেয়ার মাধ্যমে বাড়ি তৈরি করতে চান কিংবা এটি বাড়ি তৈরীর কাজে ব্যবহার করতে চান তাহলে নিতে পারবেন।

ডাচ বাংলা ব্যাংক হোম লোন এর কিছু নিয়ম-নীতি বিদ্যমান রয়েছে। যেগুলো সমন্বয়ে আপনাকে ডাচ বাংলা ব্যাংক হোম লোন সেবা উপভোগ করতে হবে।

হোম লোন সেবা সম্পর্কে তথ্য

  1. সর্বোচ্চ ২কোটি টাকা অবধি লোন নেয়া সম্ভব।
  2. ইন্টারেস্ট রেট সর্বোচ্চ ৮ শতাংশ।
  3. অন্য যেকোন ব্যাংক কিংবা আর্থিক প্রতিষ্ঠান টেক অভার এর ক্ষেত্রে ৭.৫০ শতাংশ সুদ হার।
  4. এখান থেকে লোন নিয়ে বাড়ি ফ্ল্যাট নির্মাণ কিংবা ক্রয় করতে পারবে।
  5. সিটি করপোরেশন এলাকায় বাড়ি তৈরি করতে পারবে।
  6. রিফাইন্যান্স এর সুবিধা।

ডাচ বাংলা ব্যাংক পার্সোনাল লোন

এবার আপনি যদি ডাচ-বাংলা ব্যাংকের অধীনে ডাচ বাংলা ব্যাংক পার্সোনাল লোন নিতে চান, তাহলে যে সমস্ত রিকোয়ারমেন্ট এর প্রয়োজন হবে সেগুলো দেখে নিন।

  1. সর্বোচ্চ ২০ লক্ষ টাকা লোন নিতে পারবেন।
  2. ইন্টারেস্ট রেট ৮ শতাংশ
  3. অন্য যে কোন ব্যাংক থেকে কিংবা আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে take over এর ক্ষেত্রে ৭.৫০ শতাংশ সুদ।
  4. একদম সহজ শর্তাবলী।

ডাচ বাংলা ব্যাংক কার লোন

ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে লোন নেয়ার মাধ্যমে আপনি যদি কোন কার কিনতে চান কিংবা ডাচ বাংলা ব্যাংক কার লোন নিতে চান, তাহলে নিম্নলিখিত টাকার পরিমাণ অনুযায়ী লোন নিতে পারবেন।

  1. সর্বোচ্চ লোনের পরিমাণ ৪০ লক্ষ টাকা।
  2. সুদের হার ৮ শতাংশ।
  3. রি ফাইন্যান্স সুবিধা। (রেজিস্টার্ড গাড়ির পরিবর্তে ঋণ প্রদান)

আর ডাচ বাংলা ব্যাংক থেকে বিভিন্ন খাতের জন্য লোন নেয়ার যে সমস্ত বিষয় রয়েছে সেগুলো সম্পর্কে উপরে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

এছাড়াও আপনি যদি লোন সংক্রান্ত যাবতীয় বিষয় গুলো পরিপূর্ণভাবে জেনে নিতে চান, তাহলে ডাচ বাংলা ব্যাংকের কাস্টমার কেয়ার নাম্বারে কল করুন।

ডাচ বাংলা ব্যাংক কাস্টমার কেয়ার নাম্বার
16216

উপরে উল্লেখিত কাস্টমার কেয়ার নাম্বারে কল করার মাধ্যমে আপনি বিভিন্ন সেবা সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিতে পারবেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top