ইসলামী ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট সুবিধা এবং চার্জ |

আমরা প্রায় সকলেই জানি ইসলামী ব্যাংকে ব্যতিক্রমধর্মী অ্যাকাউন্ট তৈরি করা যায়। তারই ধারাবাহিকতায় ইসলামী ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট সুবিধা সম্পর্কে জানা প্রয়োজন।

কারন, ইসলামী ব্যাংক এর স্টুডেন্ট একাউন্ট এর পাশাপাশি ইসলামী ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট এর সুবিধা জেনে নিতে পারলে আপনি সেভিংস একাউন্ট এর দিকে ঝুঁকে পড়বেন।

এরই ধারাবাহিকতায় আজকের এই পোস্টটিতে আলোচনা করা হবে ইসলামী ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট নিয়ে বিস্তারিত তথ্য, যা অবশ্যই আপনার প্রয়োজনে আসবে।

ইসলামিক ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট কি?

মূলত আপনি যদি ইসলামী ব্যাংকের অধীনে একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে চান, তাহলে একাউন্টের ধরনের মধ্যে থেকে একটি হলো ইসলামী ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট।

ভিন্ন ভিন্ন ব্যবহারকারীদের জন্য ভিন্ন ভিন্ন রকমের ব্যাংকিং একাউন্ট তৈরীর সুযোগ করে দিচ্ছে ইসলামী ব্যাংক, তারই ধারাবাহিকতায় সেভিংস একাউন্ট।

আর কিভাবে খুব সহজেই ইসলামী ব্যাংকের অধীনে একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করা যায়? এই সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন নিম্নলিখিত আর্টিকেল এর মাধ্যমে।

আশা করি, ইসলামী ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট কি এবং এই একাউন্ট কিভাবে তৈরি করে এই সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিতে পেরেছেন।

ইসলামী ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট এর সুবিধা

আপনি যদি ইসলামী ব্যাংকের অধীনে একটি সেভিংস একাউন্ট তৈরী করতে চান, তাহলে একাউন্ট তৈরির পূর্বে সেভিংস একাউন্ট এর সুবিধা সম্পর্কে জানা আবশ্যক।

এই রিলেটেড অ্যাকাউন্ট তৈরি করার ক্ষেত্রে, আপনি কি রকম সুযোগ সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন? কিংবা কত টাকা লেনদেন করতে পারবেন, সেই সম্পর্কে একটি ক্লিয়ার ধারণা রাখা অত্যাবশ্যকীয়।

তাহলে আর দেরি না করে এখনি দেখে নিন ইসলামী ব্যাংক সেভিং একাউন্ট তৈরি করার ক্ষেত্রে যে সমস্ত উপকার আপনি পাবেন সেই সমস্ত উপকার সম্পর্কে।

ইসলামী ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট এর মুনাফা

ইসলামী ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট ব্যবহারকারী হিসেবে ইসলামী ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট এর ক্ষেত্রে যে সমস্ত মুনাফার অংশীদার আপনি হতে পারবেন, সেগুলো নিচে মেনশন করা হলো।

আপনি যদি ইসলামী ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট এর টাকা রাখেন তাহলে ৩.৫% হারে মুনাফা পেতে পারেন এটি মূলত প্রতি ৬ মাস পরপর দেয়া হয়।

আর আপনাকে দেয়া এই মুনাফার উপরে সরকারি প্রায় ১৫% ভ্যাট কার্যকর হয়ে থাকে।

এসএমএস ব্যাংকিং চার্জ

ইসলামী ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট ব্যবহারকারী হিসেবে এসএমএস ব্যাংকিং চার্জ হিসেবে প্রতি ৬ মাস পরপর আপনার একাউন্ট থেকে কেটে নেয়া হয় ৫৭ টাকা + ৭.৫ ভ‍্যাট।

এই এসএমএস ব্যাংকিং চার্জ মূলত প্রত্যেকটি ইসলামী ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট থেকে প্রযোজ্য হয়।

অ্যাকাউন্ট সম্পর্কিত চার্জ

মূলত আপনার অ্যাকাউন্টের একটিভিটির উপর ভিত্তি করেই আপনার অ্যাকাউন্ট সম্পর্কিত চার্জ গুলো নির্ধারণ করা হয়ে থাকে। তবে একাউন্ট একটিভ চলতে থাকলে প্রতি বছরে ৬ মাস পর পর চার্জ পরিশোধযোগ্য।

বছরে প্রতি ৬ মাস পরপর আপনার একাউন্ট থেকে নির্দিষ্ট পরিমান চার্জ টাকা হবে এবং ভ্যাট প্রযোজ্য হবে।

চার্জের লিস্ট

  • একাউন্টে ১০,০০০ টাকার বেশি এবং ২৫,০০০ টাকার কম থাকলে কাটা যাবে ১০০ টাকা + ১৫% ভ‍্যাট ।
  • একাউন্টে ২৫ হাজার টাকা থেকে সর্বোচ্চ ২ লাখ টাকা থাকলে চার্জ প্রযোজ্য হবে ২০০ টাকা + ১৫% ভ‍্যাট ।
  • একাউন্টে ২ লাখ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ১০ লাখ টাকা থাকলে চার্জ প্রযোজ্য হবে ২৫০ টাকা + ১৫% ভ‍্যাট ।
  • একাউন্টে ২ লাখ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ১০ লাখ টাকা থাকলে চার্জ প্রযোজ্য হবে ২০০ টাকা + ১৫% ভ‍্যাট ।
  • এবং সর্বশেষ ১০ লাখ টাকার বেশি থাকলে চার্জ হিসেবে কাটা যাবে ৩০০ টাকা + ১৫% ভ‍্যাট ।

আর একজন ইসলামী ব্যাংক একাউন্ট ব্যবহারকারী হিসেবে যদি সেভিংস একাউন্ট তৈরি করেন, তাহলে উপরে উল্লেখিত মুনাফা এবং চার্জ আপনার জন্য প্রযোজ্য হবে।

আশা করি, এ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জেনে নিতে পেরেছেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top