জনতা ব্যাংক ডিপিএস | Janata Bank Dps 2021

Advertisements

আমাদের মধ্যে যে বা যারা জনতা ব্যাংকের গ্রাহক রয়েছেন, তারা জনতা ব্যাংক ডিপিএস সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিতে চান৷

আপনিও যদি Janata Bank Dps সম্পর্কে জেনে নিতে চান, তাহলে এই আর্টিকেলে এই সম্পর্কে আলোচনা করা হবে।

জনতা ব্যাংক ডিপিএস এর প্রকারভেদ

আপনি চাইলে জনতা ব্যাংকের মোট ৫টি কাজ সম্পাদনের জন্য জনতা ব্যাংক ডিপিএস অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে পারবেন।

আর এই সমস্ত প্রকারভেদ গুলো হলো

  • অনিবাসী পেনশন স্কিম।
  • জনতা হজ ডিপোজিট স্কিম।
  • জনতা ডিপোজিট স্কিম।
  • জনতা ব্যাংক স্কুল ব্যাংকিং সঞ্চয় হিসাব।
  • জনতা ব্যাংক নারী প্রকল্প সঞ্চয়ী হিসাব।

অনিবাসী পেনশন স্কিম

এই জনতা ব্যাংক ডিপিএস অ্যাকাউন্ট বিদেশে যারা অবস্থানরত কিংবা কর্মরত বাংলাদেশী নাগরিক রয়েছেন সেই সমস্ত নাগরিক সমূহ খুলতে পারবেন।

কাজেই আপনি যদি তাদের মধ্যে একজন হয়ে থাকেন, তাহলে আপনি চাইলে অনিবাসী পেনশন স্কিম ডিপিএস অ্যাকাউন্ট করতে পারেন।

ডিপিএস এর ফিচারস

  • আপনি চাইলে সর্বোচ্চ ৫ বছর মেয়াদের জন্য এই অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে পারবেন।
  • মাসিক কিস্তি ৩০০০,৫০০০, ১৫,০০০০ এবং ২০,০০০ এই টাকার অংশের মধ্যে রাখতে পারবেন।
  • একাউন্টে যে পরিমাণ আপনি টাকা রাখতে চাইবেন সেই পরিমাণ টাকা মাসের প্রথম দিন হতে শেষ দিন পর্যন্ত যেকোনো একদিন রেখে দিতে পারবেন।
  • এই একাউন্টের জন্য বার্ষিক সরল সুদের হার হল ৮.৫%।
  • এছাড়াও মেয়াদপূর্তি হওয়ার আগে আপনি যদি টাকা তুলতে চান, তাহলে বিভিন্ন মেয়াদের জন্য বিভিন্ন রকমের মেয়াদের জন্য বিভিন্ন ইন্টারেস্ট রেট প্রযোজ্য হবে।

একাউন্ট খোলার নিয়ম

  • এই একাউন্ট খোলার জন্য প্রথমত একাউন্ট খোলার যে ফ্রম রয়েছে সেই ফরমে স্বাক্ষর এবং।
  • যে ব্যক্তি অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে চায় সেই ব্যক্তির তিন কপি ছবি।
  • পাসপোর্ট এর প্রথম ৭ পাতার ফটোকপি।
  • যে ব্যক্তি কে নমিনি হিসেবে নির্বাচন করতে চান, সেই ব্যক্তির দুই কপি ফটোকপি।
  • আপনি একাউন্টে যে টাকা জমা রাখবেন সেই টাকাগুলো রেমিটেন্স এর মাধ্যমে জমা দিতে পারবেন।
  • প্রতি মাসে কিস্তি আপনি চাইলে প্রতি মাসে জমা রাখতে পারবেন এছাড়াও অগ্রিম টাকা দেওয়ার সুবিধা রয়েছে।
  • কোন নাবালক কিংবা নাবালিকা অথবা যুগ্ম নামে এই অ্যাকাউন্ট তৈরি করা যাবে না।

জনতা হজ ডিপোজিট স্কিম জনতা ব্যাংক ডিপিএস

এছাড়াও আপনি চাইলে জনতা এর যে হজ ডিপোজিট স্কিম রয়েছে, সেই Janata Bank Dps স্কিম একাউন্ট তৈরি করতে পারবেন।

একাউন্ট এর একটি বৈশিষ্ট্য হলোঃ আপনি যদি কোন রকমের সুদ ছাড়া ডিপিএস অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে চান, তাহলে এই একাউন্ট তৈরি করতে পারেন।

একাউন্টে ফিচারস

  • এই একাউন্টে মেয়াদকাল সর্বনিম্ন ১ বছর থেকে সর্বোচ্চ ২০ বছর।
  • এই একাউন্টে কোন রকমের সুদ প্রদান করা হবে না। অর্থাৎ আপনি সম্পূর্ণ উন্মুক্ত একাউন্ট তৈরী করতে পারবেন।
  • আপনি আপনার পছন্দমতো মেয়াদ বেঁধে কিস্তির পরিমাণ নির্ধারণ করতে পারবেন।
  • এছাড়াও যে ব্যক্তি এই অ্যাকাউন্ট তৈরি করছে সেই ব্যক্তি তার পছন্দমতো যেকোনো সময় টাকা তুলতে পারবেন।
  • একাউন্টে কোন রকমের চার্জ আরোপ করা হবে না, তবে সরকারী ট্যাক্স দিতে হবে।

একাউন্ট খোলার নিয়ম

  • যেকোনো প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তি এই অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে পারবেন।
  • এই অ্যাকাউন্ট তৈরি করার জন্য জাতীয় পরিচয়পত্র/ পাসপোর্ট/ জন্মনিবন্ধন/ ড্রাইভিং লাইসেন্স এর মধ্য থেকে যে কোন একটির ফটোকপি থাকলেই হবে।
  • যে ব্যক্তি অ্যাকাউন্ট খুলতে চায় সেই ব্যক্তি দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবির প্রয়োজন হবে।
  • যে ব্যক্তি কে নমিনি নির্বাচন করা হবে সেই ব্যক্তির এক কপি ছবি।
  • এছাড়াও যুগ্ম নাম এবং একই নামে একাধিক একাউন্ট খোলার মত সুবিধা পাবেন।

জনতা ডিপোজিট স্কিম জনতা ব্যাংক ডিপিএস

এছাড়াও আপনি যদি জনতা ডিপোজিট স্কিম নামে যে ডিপোজিট অ্যাকাউন্ট রয়েছে সেই অ্যাকাউন্ট খুলতে চান, তাহলে এই একাউন্টে ফিচারস সম্পর্কে জানুন।

একাউন্টের ফিচারস

  • আপনি চাইলে সর্বোচ্চ ৫ বছর মেয়াদের মধ্যে একাউন্ট চালু করতে পারবে।
  • সর্বনিম্ন ১০০০ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ২৫ হাজার টাকা অবধি প্রতি মাসে জমা রাখতে পারেন।
  • ৬% চক্রবৃদ্ধি হারে সুদের হার।
  • প্রতি মাসের ১ তারিখ থেকে ১০ তারিখ এর মধ্যে যেকোনো কার্য দিবসে আপনি ব্যাংক একাউন্টে টাকা জমা রাখতে হবে।
  • এছাড়াও এক বছর উত্তীর্ণ হওয়ার পূর্বে আপনি যদি অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেন, তাহলে বিভিন্ন পাওনা পরিশোধের পর অবশিষ্ট সুদ প্রদান ব্যতিরেকে আমানতকারীদের টাকা ফেরত দেয়ার বিধান রয়েছে।
  • এছাড়াও ৫ বছরের মেয়াদ সীমার মধ্যে আপনি অন্য যেকোনো সময় অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিলে, সমস্ত চার্জ দেয়ার পরে সরল সুদ প্রদান করে টাকা ফেরত দেয়া হবে।

অ্যাকাউন্ট খোলার ডকুমেন্ট

  • একাউন্ট বাংলাদেশি যেকোনো নাগরিক তৈরি করতে পারবেন।
  • যে অ্যাকাউন্ট তৈরি করবে তার জাতীয় পরিচয়পত্র/ পাসপোর্ট /ড্রাইভিং লাইসেন্স এর মধ্যে যেকোন একটির সত্যায়িত ফটোকপি প্রয়োজন হবে।
  • নমিনি এবং যে ব্যক্তি একাউন্টের মালিক হবে সেই ব্যক্তির সত্যায়িত দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবির প্রয়োজন হবে।
  • নাবালকের নামে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট পরিচালনা করা যাবে।

জনতা ব্যাংক স্কুল ব্যাংকিং ডিপিএস

এছাড়াও জনতা ব্যাংকের যে স্কুল ব্যাংকিং সঞ্চয়ী কার্যক্রম রয়েছে, সেই কার্যক্রমে আপনি চাইলে Janata Bank Dps সিস্টেম এ টাকা জমাতে পারবেন।

একাউন্টে ফিচারস

  • আপনি চাইলে আপনার পছন্দমত যেকোন মেয়াদকাল বেছে নিতে পারবেন।
  • মাসিক কিস্তির পরিমাণ হবে ১০০ টাকা।
  • একাউন্টের জন্য সুদের হার নির্ধারণ করা হয়নি।

একাউন্ট খোলার নিয়ম

  • যে ব্যক্তি অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে যায় সেই ব্যক্তির জন্ম সনদ।
  • শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিচয় পত্র।
  • দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি এবং নমিনির ২ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি।
  • এছাড়াও প্রয়োজন হলে অন্যান্য কাগজপত্র দরকার হতে পারে।

জনতা ব্যাংক নারী কল্যাণ ডিপিএস প্রকল্প

এছাড়াও আপনি যদি নারী সঞ্চয় প্রকল্প একাউন্ট তৈরী করতে চান, তাহলে জনতা ব্যাংকের অধীনে সেই জনতা ব্যাংক ডিপিএস অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে পারবেন।

একাউন্ট তৈরী ফিচারস

  • আপনি চাইলে সর্বনিম্ন ৫ বছর থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ১০ বছর মেয়াদের মধ্যে এই অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে পারবেন।
  • ১০০০ টাকা থেকে শুরু করে ৫০০ টাকায় গুনিতকে সর্বোচ্চ ২৫ হাজার টাকা প্রতি মাসে জমা দিতে পারবেন।
  • এই একাউন্টের জন্য সুদের হার ৬%।
  • এছাড়াও আপনি যদি ৫ বছরের আগে কিংবা ১০ বছরের আগের একাউন্ট থেকে টাকা গুলো তুলতে চান, তাহলে চার্জ বাবদ টাকা বাকি রেখে সরল সুদে আপনাকে টাকা গুলো দিয়ে দেয়া হবে।

একাউন্ট খোলার নিয়ম

  • ১৮ বছর বা তার চেয়ে বেশী বয়সী নারীরা অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে পারবেন।
  • অ্যাকাউন্ট তৈরি করার জন্য জাতীয় পরিচয়পত্র/ পাসপোর্ট/ ড্রাইভিং লাইসেন্স এর ফটোকপি প্রয়োজন হবে।
  • যে ব্যক্তি অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে চায় সেই ব্যক্তির শব্দ তোলা পাসপোর্ট সাইজের ছবির প্রয়োজন হবে।
  • নমিনীর ১ কপি ছবি প্রয়োজন হবে।
  • এবং পরিচয় প্রমাণের জন্য প্রামাণিক দলিলের ফটোকপি প্রয়োজন হবে।

আর এ সমস্ত ডকুমেন্টস নিয়ে আপনি যদি জনতা ব্যাংকে গিয়ে উপস্থিত হন, তাহলে আপনি জনতা ব্যাংক নারী কল্যাণ সঞ্চয় প্রকল্প অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে পারবেন।

আশাকরি, জনতা ব্যাংক ডিপিএস অ্যাকাউন্ট সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জেনে নিতে পেরেছেন ।

এটি হল মূলত ৫টি প্রকারভেদ এর মধ্যে জনতা ব্যাংক ডিপিএস অ্যাকাউন্ট খোলার সুবিধা রয়েছে সে সুবিধা সম্পর্কে আলোচনা।

Also Read : জনতা ব্যাংক একাউন্ট চেক | Janata Bank Balance Check

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

close
Scroll to Top